মঠবাড়িয়ায় লাঙল প্রতীকের সমর্থকদের হামলায় ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভির সাংবাদিক আহত

মঠবাড়িয়ায় লাঙল প্রতীকের সমর্থকদের হামলায় ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভির সাংবাদিক আহত মঠবাড়িয়া সংবাদদাতা :পিরোজপুর-৩ মঠবাড়িয়ায় মহাজোট প্রার্থী ডা. রুস্তুম আলীর লাঙল প্রতীকের সমর্থকদের হামলায় ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভির পিরোজপুর জেলা প্রতিনিধি পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে মো. তামিম সরদার(২৫) গুরুতর আহত হয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের মিরুখালী টেম্পু স্টাÐ এলাকায় লাঙল প্রতীকের একদল সমর্থক তার ওপর সশস্ত্র হামলা চালায়। আহত সাংবাদিক তামিমকে গুরুতর অবস্থায় মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক পিরোজপুর জেলা সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করেছে। হাসপাতাল ও স্থানীয়দের সূত্রে জানাগেছে, আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে মহাজোটের প্রার্থী ডা. রুস্তম আলী ফরাজীর লাঙ্গল প্রতীকের শতাধীক সমর্থক মোটরসাইকেল বহরে লাঠিসোঠা নিয়ে মহরা দিচ্ছিল। এ সময় সাংবাদিক তামিম সরদার পিরোজপু জেলা সদর থেকে নির্বাচনের খবর সংগ্রহের জন্য মঠবািিড়য়া শহরের মিরুখালী টেম্পু স্টাÐ সড়কে ক্যামেরা নিয়ে রাস্তার পাশে দাড়ানো ছিলেন। এসময় লাঙল প্রতীকের সশস্ত্র সমর্থকর ক্যামেরায় ছবি তোলাা হয়েেেছ ভেবে তার ওপর হামলা করে মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপ দেয়। তবে মাথায় হেলমেট থাকার কারনে সাংবাদিক তামিম প্রাণে রক্ষা পান। পরে তাকে লাঠি দিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। এ সময় হামলাকারিরা তার ক্যামেরা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়।মোটরসাইকেল ভাংচুর করে। পরে বিকালে মহাজোট নেতাদের হস্তক্ষেপে ছিনিয়ে নেওয়া ক্যামেরাা ও হেলমেট ফেরত পান আহত সাংবাদিক। এ বিষয়ে মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শওকত আনোয়ার বলেন, পুলিশ সাংবাদিকের ওপর হামলাকারিদের সনাক্তে চেষ্টা চালাচ্ছে। এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলেই আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এদিকে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে সাংবাদিক তামিমের ওপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও দোষীদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন পিরোজপুর জেলা টেলিভিশন সাংবাদিক ফোরাম। প্রসঙ্গত : পিরোজপুর-৩ মঠবাড়িয়া একক আসনে মহাজোটের লাঙল ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর আপেল প্রতীকের সমর্থকদের মধ্যে গত কয়েকদিন ধরে হামলা সমর্থকদের মধ্যে কয়েক দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে । এতে উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। এঘটনার জের ধরে মহাজোট প্রার্থীর সমর্থকরা উপজেলার পৌর শহরসহ বিভিন্ন ইউনিয়নে হামলা চালিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রায় ২০টি নির্বাচনী অফিস ভাংচুর করে। এছাড়া গুলিসাখালী ইউনিয়ন বাজারে মহাজোট প্রার্থীর একটি অফিসে হামলা ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। আজ বৃহস্পতিবার মহাজোটের লাঙল প্রতীকের সমর্থকরা লাঠিসোঠা নিয়ে মোটরসাইকেলে মহরা চালিয়ে শক্তি প্রদর্শন করে।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook
YouTube
error: Content is protected !!