মঠবাড়িয়ায় শিক্ষকের বেতের আঘাতে চোখ হারানোর শঙ্কায় স্কুলছাত্র

মঠবাড়িয়া সংবাদদাতা >>>
পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় সাপলেজা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এক শিক্ষকের বেতের আঘাতে ১০ম শ্রেণির জিহাদ এখন চোখ হারানোর শঙ্কায় আছে। এ ঘটনায় আজ বুধবার দুপুরে স্কুল চত্বরে তার স্কুলের সহপাঠি ও অভিভাবক ওই শিক্ষক গোলাম রব্বানি লিটনের বিচার দাবি করে বিক্ষোভ করেছেন।

শিক্ষার্থী জিহাদ সাপলেজা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেনীর ছাত্র ও সৌদি প্রবাসী বাবুল বেপারীর ছেলে।

স্কুলছাত্রীর পরিবার ও প্রত্যদর্শী শিার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত ২৫ আগস্ট সকালে সাপলেজা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক গোলাম রব্বানি লিটন এর কাছে জিহাদ প্রাইভেট পড়তে ছিল। এসময় হোম ওয়ার্ক না হওয়ায় ওই শিক্ষক বেত দিয়ে অপর এক শিক্ষার্থীকে আঘাত করলে অসাবধানতা বশত জিহাদের বাম চেখে লেগে যায়। এতে জিহাদের চোখে রক্ত খরণ হওয়ায় স্বজনরা জিহাদকে আহত অবস্থায় প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরে খুলনা ইসলামিয়া চক্ষু হাসপাতালের চু বিভাগে ভর্তি করেন। সেখানে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানোর পরামর্শ দেন। বর্তমানে জিহাদ ঢাকা ধানমন্ডি হারুন আই ফাউন্ডেশন হাসপাতালে অধ্যাপক ডা. শেখ এ,এন, মান্নান এর তত্ত¡বধানে চিকিৎসা চলছে।

আহত স্কুলছাত্রের মা বলেন, চিকিৎসকরা বলছেন আমার ছেলের চোখের অবস্থা খুব একটা ভালো নয় তবে অপারেশন লাগতে পারে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক গোলাম রব্বানি লিটন বলেন, অন্য এক শিক্ষার্থীকে মারতে গিয়ে অসাবধানতা বশত জিহাদের চোখে লেগে যায়। তার চিকিৎসার সম্পূর্ণ খরচ আমি চালাচ্ছি।

সাপলেজা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাশেদ জানান, এ ঘটনার কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি। তবে এ বিষয়ে ম্যনেজিং কমিটি ও শিক্ষকদের সাখে আলোচনা করে সিদ্বান্ত প্রহন করা হবে।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook
YouTube
error: Content is protected !!